সমাধান

পরীক্ষণ ১.২: web-এ password ও 2-step verification  ব্যাবহার

তত্ত্ব : Gmail ব্যাবহার করে web-এ password ও 2-step verification দেখানো হল।

প্রয়োজনীয় উপকরণ : i) হার্ডওয়্যার: এক সেট  কম্পিউটার,
                                          ii) সফটওয়্যার : Windows-7, Google Chrome

কার্যপ্রণালী :

i) সহজ পাসওয়ার্ড ব্যাবহার না করা-অনেকেই তাদের পাসওয়ার্ড হিসাবে নাম, কীবোর্ড এর সহজ বিন্যাস ব্যাবহার করে।যা সংগত নয়।ফলে account সহজে হ্যাক করা যায়।তাই জটিল বিন্যাস ব্যাবহার করা উচিত।এতে অক্ষর,সংখ্যা ব্যাবহার করা যায়।
ii) নিয়মিত পাসওয়ার্ড পরিবর্ত করা।
iii) যেসব ক্ষেত্রে দিমুখী ভেরফিকেশনের ব্যবস্থা আছে তা ব্যাবহার করা।যেমন -মোবাইল ফনের মাধ্যমে g-mail account টির নিরাপত্তা আরও শক্তিশালী করা যায়।এ জন্য 2-step verification অপশনটি ব্যবহার করতে হবে-
a)profile থেকে account settings এ যেতে হবে।
b)2-step verification অপশনে click করতে হবে।
c)mobile number টি  দিতে হবে এবং send code বাটনে click করতে হবে।
d)g-mail থেকে mobile এ একটি security code পাঠানো হবে।সেটি দিয়ে verify অপশনে ক্লিক করতে হবে।
e)এরপর 2-step verification টি অন করতে হবে।

ফলাফল: web-এ password  ও ২-step verification একটিভ করেছি।

(লিখেছে: ইফতি হাসান, দশম শ্রেণি, শাখা-ডি, কলেজ নম্বর-১২০৩৪)

————————————————-

পরীক্ষণ ২.১: ওয়ার্ড প্রসেসিং সফট্‌ওয়্যার চালু করে নতুন ডকুমেন্ট তৈরী, সেভ ও ক্লোজ করা।

তত্ত্ব : Microsoft office Word 2007 ওয়ার্ড প্রসেসিং সফটওয়্যার চালু করে নতুন ডকুমেন্ট তৈরী, সেভ ও ক্লোজ করে পরীক্ষনটি সম্পন্ন করি।
প্রয়োজনীয় উপকরণ : i) হার্ডওয়্যার: এক সেট  কম্পিউটার,
ii) সফটওয়্যার :Windows-7, Microsoft Word 2007

কার্যপ্রণালী :

১। প্রথমে Microsoft office Word 2007 চালু করার জন্য কমান্ড দিই-
Start=>All Program=> Microsoft Office => Click Microsoft office Word 2007
২। Microsoft office Word 2007 চালু করার পর বিভিন্ন বার, ট্যাব, রিবন ও একটি সাদা পেজ দেখা যাবে এবং সাদা পেজের প্রথমাংশে ইনসার্সন কার্সর দেখা যাবে, যেখান থেকে লেখা শুরু করতে হবে।
৩। পেইজে আমার নাম লিখে টাইটেল বারের বাম পার্শ্বে সেইভ বাটনে ক্লিক করি অথবা ফাইল ট্যাব/ হোম বাটনে ক্লিক করে সেইভ অপশনে ক্লিক করি।
৪। অত:পর যে ডায়ালগ বক্স আসবে সেখানে ফাইল নেইম অংশে ফাইলের নাম লিখে সেইভ বাটনে ক্লিক করি, তখন ফাইলটি সেইভ হয়ে যাবে।
৫। এখন ফাইলটি ক্লোজ করার জন্য প্রথমে অফিস বাটনে ক্লিক করে ক্লোজ অপশনে ক্লিক করার পর ডকুমেন্টটি ক্লোজ হলো।

ফলাফল :

উপরোক্ত পদ্ধতি অনুসরন করে সফলভাবে ওয়ার্ড প্রসেসিং সফট্‌ওয়্যার চালু করে নতুন ডকুমেন্ট তৈরী, সেভ ও ক্লোজ করতে সক্ষম হয়েছি।

(লিখেছে: তাসনিমুল ফেরদৌস তামিম, দশম শ্রেণি, শাখা-ডি, কলেজ নম্বর-১৫১০৩৫২)

————————————————-

পরীক্ষণ ২.২: টেক্সট ফরমেটিং ও কাট, কপি, পেস্ট।

তত্ত্ব : বর্তমান বিশ্বে cut, copy and paste নিঃসন্দেহে এক বিশেষ আবিষ্কার। Microsoft Word 2007 ডকুমেন্টে cut, copy and paste-এর ব্যবহার করে একটি ডকুমেন্ট তৈরী করছি।

প্রয়োজনীয় উপকরণ : i) হার্ডওয়্যার: এক সেট  কম্পিউটার,
                                         ii) সফটওয়্যার : Windows-7, Microsoft Word 2007

কার্যপ্রণালী :
ক) টেক্সট ফরমেটিং:
মাইক্রোসফট ওর্য়াডে টেক্সট ফরমেটিং বলতে আমরা বুঝি ফন্ট নির্বাচন, ফন্টের আকার, ফন্টের কালার, পেরাগ্রাফ স্পেস, পেরাগ্রাফ, ট্যাব, এ্যালাইনমেন্ট ইত্যাদি ব্যবহার করে একটি ডকুমেন্ট তৈরী করা।
১। প্রথমে আমি একটি দরখাস্ত টাইপ করি।
২। ডিফল্ট ফন্ট টাইম নিউ রোমান থেকে এরিয়াল ফন্ট নির্বাচন করি।
৩। দরখাস্তটি অল সিলেক্ট করে লাইন স্পেস ১.৫ করে দিই।
৪। ডিফল্ট ফন্টের আকার ১২ থেকে বাড়িয়ে ১৪ করে দিই।
৫। হোম ট্যাবের রিবন থেকে এ্যাইনমেন্ট Left থেকে Justified  করে দিই।

খ) কপি, পেস্ট:

১। Microsoft Word 2007 এ  প্রথমে আমার নাম টাইপ করি। যেমন:My Name Is Swath.
২। হোম ট্যাবের রিবন থেকে ফন্ট স্টাইল ও সাইজ নির্ধারণ করি।
৩| এরপর লেখাটি এর পর Mouse এর Right Button Click  করি।একটি মেনু অপসন বার পাওয়া যাবে।সেখান হতে ‘Copy’ তে ক্লিক করলেই তা কপি হয়ে যাবে।
৪|এরপর,যে জায়গাতে লেখাটি কপি করবো,সেখানে আবার  Right Button Of   Mouse click করলেই আবার অপসন বার আসবে।সেখানে Paste এ ক্লিক করলেই লেখাটি Paste হয়ে যাবে।

গ) কাট, পেস্ট:
১। Microsoft Word 2007 এ  প্রথমে আমার নাম টাইপ করি। যেমন:My Name Is Swath.
২। হোম ট্যাবের রিবন থেকে ফন্ট স্টাইল ও সাইজ নির্ধারণ করি।
৩| এরপর লেখাটি এর পর Mouse এর Right Button Click  করি।একটি মেনু অপসন বার পাওয়া যাবে।সেখান হতে ‘cut’ তে ক্লিক করলেই তা কাট হয়ে যাবে।
৪|এরপর,যে জায়গাতে লেখাটি স্থাপন করবো,সেখানে আবার  Right Button Of Mouse click করলেই আবার অপসন বার আসবে।সেখানে Paste এ ক্লিক করলেই লেখাটি Paste হয়ে যাবে। উল্ল্যেক্য যে, যেখানে প্রথমে লেখাটি ছিল তা আর সেখানে থাকবে না।
ফলাফল:
একটি দরখাস্ত টাইপ করে টেক্সট ফরমেটিং ও কাট কপি পেস্ট দেখানো হলো।
(লিখেছে: Swath Shahin Mahmud, দশম শ্রেণি, শাখা-ই, কলেজ নম্বর-১১৯৫১)
————————————————-

পরীক্ষণ ২.৪: ডকুমেন্টে টেবিল তৈরী করা।  ছবি এবং ওয়ার্ড আর্ট সংযুক্ত করা।

তত্ত্ব : Microsoft Word 2007 ডকুমেন্টে বিভিন্ন সময়ে প্রয়োজনে ছবি ও ওয়ার্ড আর্ট সংযোজন করি ,যা বিভিন্ন ধরনের হতে পারে।
প্রয়োজনীয় উপকরণ : i) হার্ডওয়্যার: এক সেট  কম্পিউটার,
                                         ii) সফটওয়্যার : Windows-7, Microsoft Word 2007
কার্যপ্রণালী :
i) ছবি যোগ করার জন্য নিচের কমান্ড অনুসরণ করেছি…
১| রিবনের ইনসার্ট ট্যাবে ক্লিক করি।
২| ইলাস্ট্রেশন গ্রপে পিকচার আইকন এ ক্লিক করি।
৩|প্রাপ্ত ডায়লগ বক্সে ছবির জায়গা নির্ধারন করে ছবি নির্দিষ্ট করে দিয়েছি, অত:পর ডকুমেন্টে ছবি যোগ হয়েছে।
ii) ওয়ার্ড আর্ট যোগ করতে নিচের কমান্ড অনুসরণ করেছি…
১|ইনসার্ট ট্যাবে টেক্সট গ্রপে ওয়ার্ড আর্ট এ ক্লিক করি।
২|এরপর পছন্দমত স্টাইল নির্বাচন করি।
৩|এরপর প্রাপ্ত ডায়লগ বক্সে ফন্ট ঠিক করে দিলে তা কাঙ্ক্ষিত স্টাইলে প্রদর্শন করেছে।
ফলাফল:
ছবি ও ওয়ার্ড আর্ট যুক্ত করে ছাত্ররা তাদের কাজকে আরো শোভনীয় করতে পারবে।
(লিখেছে: Swath Shahin Mahmud, দশম শ্রেণি, শাখা-ই, কলেজ নম্বর-১১৯৫১)